Header Border

ঢাকা, শনিবার, ২৪শে জুলাই, ২০২১ ইং | ৯ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ (বর্ষাকাল) ২৮.৯৬°সে

রাজশাহীর আসল আম ডিডি ফুড ট্রেডিং এ

আমাদের সমাজের একটা রীতি হয়ে দাঁড়িয়েছে যে যেকোন উপায়ে টাকা ইনকাম করে কোটিপতি হতে হবে তাহলেই সব সুখ শান্তি চলে আসবে। কিন্তু আমি এসব বিশ্বাস করতাম না এবং আলহামদুলিল্লাহ এখনো করিনা। বিশেষ করে আমি দেশের বাহিরে দীর্ঘ ১২ বছর কাজ করেছি চাকরির বদৌলতে তখন থেকেই আমি ওসব দেশের খাদ্যের প্রতি অনেক আগ্রহী ছিলাম এবং নিজের দেশের খাদ্যের ব্যাপারে বেশ হতাশ ছিলাম। তাই ভিন্নধর্মী এমন কিছু করার চিন্তা করতাম, যাতে মানুষের সেবার পাশাপাশি অন্যদের কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দিতে পারি। দীর্ঘ ১০ বছর পরে আমার সেই স্বপ্নের শুরুটা করে দিতে এক বিশাল ভুমিকায় আমাকে সাহায্য করে এক ছোট ভাই ( সোহাগ ফরাজি কাতার থেকে) সেই উদ্দেশ্য থেকেই DD Food Food Trading নামে খাদ্যপণ্যের ব্যবসা শুরু করি।

২০১৯ সালের মাঝামাঝি আমরা একটা পরিকল্পনা করি মানুষকে ভেজালমুক্ত খাবার কিভাবে দিতে পারি এবং দেশের পণ্য বিদেশে কি ভাবে রপ্তানি করতে পারি।
এই বিষয় নিয়ে প্রায় ৫ মাস খোঁজ খবর নিতে থাকি। করোনার কারণে সারাদেশে লকডাউন চলছে তখন, সবার মতো আমরাও যার যার বাসায় বন্দী। তখন ভাবলাম আপাতত আমাদের ব্যবসার প্রচারটা অনলাইনে চালানো যায়৷ এরপর আমরা ‘DD Food Trading’ নামে ফেসবুক গ্রুপ খুলে প্রচারণা শুরু করলাম।খুব অল্প পুঁজি দিয়ে ব্যবসা শুরু। আমাদের কোম্পানির একটি অফিসিয়াল ওয়েবসাইটও আছে।

ইতিবাচক সাড়াও মিলছে আমাদের এই উদ্যোগে। আমরা ফ্রেশ খাবারগুলোর গুণগত মান ঠিক রেখে গ্রাহকদের পৌঁছে দিতে চেষ্টা করছি। পণ্যের বেশিরভাগ প্রান্তিক কৃষক থেকে সংগ্রহ করি। শতভাগ ভেজালমুক্ত পণ্য গ্রাহকদের দেয়ার চেষ্টা করছি।

বিশেষ করে আমের মৌসুমে বেশ ভালো বিক্রি করতে পারছি আলহামদুলিল্লাহ । শুরু থেকে আমরা যতটুক আশা করেছি তার থেকে অনেক বেশি সাড়া পেয়েছি এবং কাছের মানুষগুলো বিশেষ করে আমার মিয়া ভাই ও মিডিয়ার মানুষগুলো এবং সাংবাদিক কিছু ভাইয়েরা ও আমার প্রিয় ছোট ভাই ইমন সাদি নানাভাবে আমাদেরকে অনুপ্রেরণা দিয়ে আসছেন।
মাত্র কয়েকটি পণ্য নিয়ে কাজ শুরু করেছি এখন আমাদের কাছে ১০-১৫ ধরনের পণ্য রয়েছে যেগুলো আমাদের পরিবারে প্রতিদিনই প্রয়োজন হয়। এরমধ্যে তেতুল, ঘানিতে ভাঙ্গানো খাঁটি সরিষার তেল, সুন্দরবনের খলিশাফুলের মধু, প্রাকৃতিক চাকভাঙা কালোজিরা ফুলের মধু , মিশ্রফুলের মধু,কাঠবাদাম, চিনাবাদাম, পেস্তাবদাম,তুর্কি জ্বিরা,
শেরপুরের বিখ্যাত ও পাবনার খাঁটি ঘিঁ, নানারকম সৌদি আরবের খেঁজুর,
দেশি মসুর ডাল,মুগ ডাল,
মাশ’কালাই ডাল,শতভাগ ঘিয়ে ভাজা পাবনার সেমাই, নানা ধরনের মৌসুমি ফল ইত্যাদি।

পরবর্তীতে আরো নতুন পণ্য বাড়ানোর এবং সঙ্গে সহজলভ্য করার ইচ্ছাও আছে আমাদের । এছাড়াও কোনো পণ্য অনিচ্ছাকৃত একটু খারাপ হয়ে গেলে আমরা গ্রাহকদেরকে পুনরায় ফেরত দিয়ে থাকি অথবা মূল্য ফেরত দেয়ার মনস্থির থাকে আমাদের,এক্ষেত্রে ক্ষতি হলেও আমাদের দুঃখ নেই। কারণ ‘সবকিছুর উপরে সততাই আমাদের মূলধন।’

‘ব্যবসা নিয়ে আমাদের স্বপ্নটা অনেক বড়। যত বাধাই আসুক আমরা আমাদের এই ব্যবসা প্রতিষ্ঠিত করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাবো। আমরা স্বপ্ন দেখি
একদিন বাংলাদেশের প্রতিটি প্রান্তে আমাদের DD Food Trading এর পণ্য পৌঁছে যাবে। আমি এটাও বিশ্বাস করি সবাই যদি এগিয়ে আসি ভেজালমুক্ত খাদ্যের প্রতি তবে একদিন আমাদের দেশেও ভেজালযুক্ত খাদ্য থাকবেনা ইনশাআল্লাহ।
হয়তো এখন হাজারো ভেজাল খাদ্যের মাঝ হতে খাঁটি খাদ্য বের করার জন্যে কিছুটা দাম আমাদের বেশি গুনতে হয়, কিনতু ভেজালযুক্ত খাদ্য যদি আমরা সকলে মিলে গ্রহন না করি তখন আর বেশি দাম দিতে হবেনা আমি আশাবাদী।
যেহেতু, আমি দেশের শিল্পী সংস্কৃতি এবং সাধারন মানুষদের ভালোবাসি। তাই আমরা DD Food Trading সর্বদা চেষ্টা করছি উন্নত মানের এবং ভেজালমুক্ত খাদ্য আপনাদের পৌঁছে দিতে।
এছাড়াও DD Food Trading মিডিয়ার তারকা, পরিচালক ও সাংবাদিকদের উপহার স্বরুপ আম বিতরণ করছেন।
পরিশেষে এটাই বলব আমরা বিশ্বাস করি পণ্যের মান ভালো হলে ক্রেতা আসবেই। সেই সঙ্গে সফলতা।
সবাই সচেতন থাকুন সুস্থ থাকুন এবং DD Food Trading এর সাথেই থাকুন।
M/s DD Food Trading.

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

অভিনেতা হতে চান নাহিয়ান ত্বকী
গণমাধ্যম বিভাগের ভাবমুর্তি উজ্জ্বল করে বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন রাসেল মিয়া হৃদয়
নিত্যপ্রয়োজনীয় ভেজালমুক্ত খাবার সরবরাহ করছে DD Food Trading

আরও খবর